ভ্রমণে পানির অভাব দূর করার উপায় - Travel tips

 

ভ্রমণে পানির অভাব দূর করার উপায়

ভ্রমণে পানির অভাব দূর করার উপায় - Travel tips


আমরা প্রায় সময় ভ্রমণ করতে যায়। ভ্রমণ করার সময় আমাদের অনেকেরই পানিশূন্যতা দেখা দিতে পারে। বিভিন্ন কারণে আমরা পানি থেকে দূরে থাকে। আমাদের দেহে পানিশূন্যতা দেখা দেয় ভ্রমণের সময়।

তবে অনেক সময় আমরা ভ্রমণে গেলে পানির দিকে খেয়াল করি না। পানির দিকে নজর রাখি না। এক্ষেত্রে আমাদের বিভিন্ন রকম সমস্যা গুলো দেখা দিতে পারে। ভ্রমণে যখন যাওয়া হয় তখন যদি ভ্রমণে বিশেষ কিছু দিকে নজর দেওয়া না হয়। বিশেষ করে যখন পানির দিকে নজর না দেয় তখন আমাদের দেহে পানির অভাব দেখা দেয়।

কিন্তু আমরা এসব বিষয়গুলো লক্ষ্য করি না। আবার এটাও লক্ষ্য করি না আমাদের দেহে ভ্রমণে গেলে পানির অভাব দেখা দিবে কিনা।

সাথে সাথে আমরা আরেকটা বিষয় লক্ষ্য করি না সেটা হলো যদি আমাদের দেহে পানিশূন্যতা দেখা দেয় ভ্রমণে গেলে যদি আমাদের দেহে পানির অভাব দেখা দেয় তাহলে আমরা কিভাবে থেকে রক্ষা পেতে পারি। কিভাবে আমরা ভ্রমণে কোনরকম পানির অভাব থেকে মুক্ত থাকব পানিশূন্যতা থেকে রেহাই পাব।

পানির কোন সমস্যা হবে না। আমরা সহজে পানি পাব এবং সেটি আমাদের ভ্রমণের বিভিন্ন কাজগুলোতে লাগাবো। এসব বিষয়গুলো আমাদের অনেকেরই অজানা। আমরা অবহেলা করি এসব বিষয়গুলো মাথায় রাখি না বা পরিকল্পনা করি না।


তো চলুন জেনে নেয়া যাক ভ্রমণে গেলে কিভাবে আপনি পানির অভাব দূর করবেন:


ভ্রমণে সাথে পানি রেখে

আপনি যখন ভ্রমণে যাবেন তখন অবশ্যই আপনি আপনার  সাথে করে আপনি পানি নিয়ে যাবেন। পানি যাবেন যাবেন যতটুকু পানি প্রয়োজন আপনি যদি ততটুকু পানি আপনার সাথে করে নিয়ে যায়। এতে করে আর আপনাকে অতিরিক্ত পানির হয়রানি হতে হবে না। আপনি মনে করেন তখন আপনার সাথে পানি আছে যেকোন ভাবে আপনি আপনার প্রয়োজন মত পানি বহন করে নিয়ে গেলেন। তখন আপনার খাওয়া থেকে শুরু করেন পথে যদি যেকোনো কাজের পানি প্রয়োজন হয়। তখন আপনি সেই পানি থেকে খরচ করলেন। আপনার প্রয়োজন মত আপনি আপনার প্রয়োজন তা সেরে নেন।। আপনাকে তো কোথাও যেতে হলো না। আপনার কোন রকম সমস্যা সৃষ্টি হলো না এজন্য হতে পারত ।

অথবা এভাবে বলা যেতে পারে, মনে করেন আপনার ভ্রমণে গেলেন আপনি আপনার প্রয়োজন মত পানি আপনার সাথে করে নিয়ে এলেন না। এ ক্ষেত্রে কি হতে পারে। এক্ষেত্রে দেখাও আপনার যখন পানি প্রয়োজন হলেও তখন আপনি আপনার প্রয়োজন মত পানি ব্যবহার করতে পারবেন না। এক্ষেত্রে আপনি পানি ব্যবহার না করার কারনে আপনি অনেক সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। যেমন আপনি যদি পান করেন সেক্ষেত্রে আপনি যদি পানি না পান তৎক্ষণাৎ ভাবে তাহলে কি হতে পারে।

আপনার ভ্রমণ আনন্দ হারিয়ে যেতে পারে। আপনার ভ্রমণে অস্বস্তি লাগতে পারে। অথবা দেখা গেল আপনার পরিবার অথবা আপনার পাশে কেউ হতে পারে, আপনার বিশেষ কেউ হতে পারে অথবা কোন বাচ্চা হতে পারে বা আপনার ক্ষেত্রে তার ও পানির পিপাসা লাগতে পারে। ততক্ষণ গেল আপনি পানি দিতে পারবে না। তখন ওই বাচ্চা ও আপনার পরিবারের লোকজনদের বিপাশা জনিত কারণে আপনার ভ্রমণ আপনার পরিবারের ছোট বাচ্চার অস্বস্তি লাগবে। ভ্রমণের সমস্যা সৃষ্টি হবে অথবা কিছু হতে পারে। তার খারাপ লাগতে পারে আর কি।

অথবা আপনার ছোট বাচ্চা বা পরিবারের লোকজনের বিশেষ কোনো কাজে হতে পারে। আপনার বাচ্চা বিশেষ একটা প্রয়োজনে পানি দেয়। তখন আপনার সাথে যদি ওরকম ভাবে পানি না থাকে তাহলে আপনি কি করবেন তখন আপনি পানি হবে সেই প্রয়োজনমতো সেই প্রয়োজনমতো কাজটা করতে পারলেন না।

এমনকি আপনার বাচ্চার যদি কোন শৌচাগারের প্রয়োজন হয় সেই কাজে পানি প্রয়োজন হয়। তখনও তো হয়তো আপনি দিতে পারবেন না। তখন পানির অভাবেই ভ্রমণে সৃষ্টি হবে। ভ্রমণে খারাপ লাগবে। ভ্রমণের হয়তো বেশী ভালো লাগবে না। তখন আপনি পানি জন্য হয়তো একটু অসস্তি বোধ করবেন। পানির জন্য হয়তো আপনি  হয়তো আপনি জিজ্ঞাসা করবেন বা খোঁজখবর জাপানি কোথায় পাবো আশা করি আপনি দোকান বা যেখানে পানি পাওয়া যায় সেরকম জায়গা আপনি ছোটাছুটি করলেন।

এক্ষেত্রে ভ্রমণে বারোটা বেজে গেল অথবা বলা যে আপনার ভ্রমণ হয়ে উঠল না। হ্যাঁ দেখা গেলো আপনি কারো কাছ থেকে অথবা কোন দোকান বা কোন জায়গা থেকে আপনি পানি নিয়ে, আপনার পরিবার বা ছোট বাচ্চা অথবা তার নিজের প্রয়োজন হয় তার প্রয়োজন সারালেন।কিন্তু আপনার কাছে যদি থাকতো তাহলে আপনি খুব তাড়াতাড়ি ব্যবহার করতে পারতেন। আপনাকে ছোটাছুটি করতে হত না।

আপনাকে পানি কোথায় পাওয়া যায় সেরকম একটা কাজ করতে হত না। তাই আপনি যদি আপনার সাথে যদি ভ্রমণের সময় সাথে করে পানি রাখেন। তাহলে আপনাকে পানি জন্য আর অতিরিক্ত কোথাও যেতে হবে না। আপনার প্রায় অনেকগুলো কাজ প্রয়োজন মত সারিয়ে নিতে পারবেন আপনি। যদি আপনার প্রয়োজন মত পানি নিয়ে ভ্রমণে যান।

Post a Comment (0)
Previous Post Next Post